বিরাটহীন ভারতের সামনে আজ কঠিন প্রতিপক্ষ পাকিস্তান

দুবাই, ১৮ সেপ্টেম্বর: এশিয়া কাপে আজ মুখোমুখি দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত-পাকিস্তান। মরুশহরে এমনিতেই এখন প্রচণ্ড গরম। তার ওপর এই ম্যাচ ঘিরে উত্তেজনার পারদ উর্দ্ধমুখী। প্রায় এক বছর পর দুই দেশ ফের সম্মুখ সমরে। এর আগে ২০১৭ সালের ১৮ জুন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল পাকিস্তান। এশিয়া কাপে তার বদলা নিতে মরিয়া ‘টিম ইন্ডিয়া’।
ক্রীড়াসূচি অনুযায়ী ভারত-পাকিস্তান এশিয়া কাপে দু’বার খেলবে। ‘এ’ গ্রুপ থেকে দুই দলের সুপার ফোরে যাওয়া এক প্রকার নিশ্চিত। তবে কোন দল গ্রুপ টপ করবে তা নিয়েই দুই দেশের ক্রিকেটপ্রেমীদের মধ্যে আগ্রহ বেশি। ২০১৬ পর্যন্ত এশিয়া কাপে দুই দল এখনও পর্যন্ত ১২ বার মুখোমুখি হয়েছে। তার মধ্যে ভারত জিতেছে ছ’বার। পাকিস্তান পাঁচবার।
বিরাট কোহলিকে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছে। তাই এশিয়া কাপে ভারতকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন রহিত শর্মা। এই প্রথম রহিত কোনও পুর্ণাঙ্গ টুর্নামেন্টে ভারতকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন। স্বভাবতই তিনি কিছুটা চাপে। হংকংয়ের মতো দুর্বল প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে বড় রান করার সুযোগ ছিল তাঁর সামনে। কিন্তু রহিত তা সদ্ব্যবহার করতে পারেননি। ফলে পাক ম্যাচে রহিত আরও চাপে পড়ে গেলেন।
কোহলির অবর্তমানে ভারতীয় দলকে ব-কলমে নেতৃত্ব দিচ্ছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। তিনি বহু কঠিন লড়াইয়ের পোড় খাওয়া সৈনিক। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে এশিয়া কাপের ম্যাচটা যে সহজ হবে না সেটা বিলক্ষণ জানেন মাহি। কারণ, লাহোরে শ্রীলঙ্কা টিম বাসের ওপর হামলার পর থেকে হোম গ্রাউন্ড হিসাবে আরব আমির শাহিতেই খেলতে অভ্যস্ত পাকিস্তান। ফলে এখানকার পরিবেশ ও পিচের সঙ্গে পাক ক্রিকেটাররা অনেক বেশি পরিচিত। তার সুবিধা পাকিস্তান পাবে।
তবে কোহলিহীন ভারতীয় দলের ব্যাটিং কিন্তু যথেষ্ট শক্তিশালী। রহিত শর্মার সঙ্গে ওপেন করবেন শিখর ধাওয়ান। ইংল্যান্ডে টেস্ট সিরিজে ব্যর্থ হওয়ার পর এশিয়া কাপে নিজের সেরাটা মেলে ধরতে মরিয়া শিখর। কারণ, এই পারফরম্যান্স তাঁর বিশ্বকাপ দলের সুযোগ পাওয়ার মাপকাঠি হয়ে উঠতে পারে। বিরাট কোহলির জায়গায় তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে বড় রান পেয়েছেন অম্বাতি রায়াডু। তবে ইও ইও টেস্টে তিনি পাস করতে না পারায় ইংল্যান্ডের মাটিতে সীমিত ওভারের সিরিজে ভারতীয় দলে জায়গা পাননি। পরে ফিটনেস লেভেল উন্নতি করে ভারতীয় দলে ফিরে এসেছেন রায়াডু। বিশ্বকাপের আগে মিডল অর্ডারের সমস্যা দূর করতে মরিয়া কোচ রবি শাস্ত্রী। তাই এশিয়া কাপ এবং পরের সিরিজগুলিতে একাধিক ক্রিকেটারকে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে খেলিয়ে দেখে নিতে চাইছেন তিনি। চার নম্বরে দীনেশ কার্তিক, পাঁচে কেদার যাদব ও ছয়ে মহেন্দ্র সিং ধোনির জায়গা পাকা। তবে কেদার কিংবা অম্বাতি রান না পেলে মণীশ পাণ্ডে খেলার সুযোগ পাবেন। ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টের হাতে অনেকগুলি অপশন রয়েছে।
দুবাইয়ে এখন তাপমাত্রা চল্লিশ ডিগ্রির ওপর। ফলে ক্রিকেটাররা দ্রুত ক্লান্ত হয়ে পড়ছেন। হংকং ম্যাচের পর ভারতীয় ক্রিকেটাররা কোনও বিশ্রাম পাচ্ছেন না। ক্রীড়াসূচি নিয়ে বিসিসিআই প্রথম দিকে প্রশ্ন তুলেছিল। কিন্তু এবারের আয়োজক দেশ ভারত। শেষ পর্যন্ত পর পর দু’টি ম্যাচ খেলার ব্যাপারেই সম্মতি জানায় বিসিসিআই। ক্রিকেটারদের মধ্যে অসন্তোষ অবশ্য চাপা থাকেনি। ক্লান্তি কিন্তু পাকিস্তান ম্যাচে ভারতীয় দলের কাছে বড় ফ্যাক্টর হতে পারে।
দুই রিস্ট স্পিনার যুজবেন্দ্র চাহাল ও কুলদীপ যাদব ম্যাচের মোড় ঘোরানোর ক্ষমতা রাখেন। দুবাই ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামের পিচে স্পিনাররা সুবিধা পাবেন। সেক্ষেত্রে কেদার যাদব কিংবা অম্বাতি রায়াডু প্রয়োজনে তৃতীয় স্পিনারের ভূমিকা পালন করতে পারেন। হংকং ম্যাচে তরুণ পেসার খলিল আহমেদকে খেলিয়ে বড় চমক দিয়েছে ভারত। সঙ্গে ছিলেন ভুবনেশ্বর কুমার ও শার্দুল ঠাকুর। তবে যশপ্রীত বুমরাহকে হয়তো পাকিস্তান ম্যাচে দলে ফেরানো হবে। ইয়র্কার স্পেশালিস্ট বুমরাহ পাকিস্তান ম্যাচে ভারতের তুরুপের তাস হয়ে উঠতে পারেন। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জেতার পর পাকিস্তান কিন্তু সীমিত ওভারের ক্রিকেটে দারুণ খেলছে। সরফরাজ আহমেদ দারুণ নেতৃত্ব দিচ্ছেন। পাশাপাশি ফখর জামান, বাবর আজম, শোয়েব মালিকের মতো তারকা ব্যাটসম্যান পাক দলের বড় ভরসা। লড়াইটা অনেকে দেখছেন ভারতের ব্যাটিংয়ের সঙ্গে পাকিস্তানের পেস বোলিংয়ের। কারণ, পাক দলে আছেন তিন বাঁহাতি পেসার। মহম্মদ আমির, উসমান খান, হাসান আলির মতো তারকা পেসাররা ভারতীয় ব্যাটসম্যানদের সমস্যায় ফেলতে পারেন। লেগ স্পিনার শাদাব খানের দিকেও নজর থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com